৪ঠা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২০শে রজব, ১৪৪২ হিজরি

এক হাজার ১৪২ কোটি ৬৯ লাখ ৭৮ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭ প্রস্তাবের অনুমোদন


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

২৭ জানুয়ারি, ২০২১, ৮:২৩ অপরাহ্ণ

এক হাজার ১৪২ কোটি ৬৯ লাখ ৭৮ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭ ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার (২৭ জানুয়ারি) এক ভার্চুয়াল সভায় এসব প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের  সভাপতিত্বে সভায় কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন।  সভা শেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল।

সভা শেষে অর্থমন্ত্রী বলেন, আজ অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির তৃতীয় এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির চতুর্থ সভা হয়েছে।  অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের জন্য ২টি প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়।  এর মধ্যে একটি প্রস্তাবে কমিটি অনুমোদন দিয়েছে।

তিনি বলেন, ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির সভায় অনুমোদনের জন্য ৮টি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। এর মধ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ৫টি, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের ২টি এবং বিদ্যুৎ বিভাগের ১টি প্রস্তাবনা ছিল। তবে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের একটি প্রস্তাবে সংশ্লিষ্ট বিভাগ পুনর্মূল্যায়ন করার অনুমোদন চেয়েছে।  কাজেই ক্রয় কমিটির অনুমোদিত ৭টি প্রস্তাবে মোট অর্থের পরিমাণ ১,১৪২ কোটি ৬৯ লাখ ৭৮ হাজার ৯৮ টাকা।  মোট অর্থায়নের মধ্যে জিওবি হতে ব্যয় হবে ১,১১০ কোটি ৭৭ লাখ ৩৬ হাজার ৪০১ টাকা এবং বিশ্বব্যাংক ও জাইকা থেকে ঋণ নেওয়া হবে ৩১ কোটি ৯২ লাখ ৪১ হাজার ৬৯৭ টাকা।

অতিরিক্ত সচিব ড. সালেহ বলেন, সভায় বিদ্যুৎ বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড কর্তৃক ‘শতভাগ পল্লী বিদ্যুতায়নের জন্য বিতরণ নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ (রাজশাহী, রংপুর, খুলনা ও বরিশাল বিভাগ) (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পের ২৩ হাজার ৬৫০টি এসপিসি পোল ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।  এজন্য ব্যয় হবে ৩২ কোটি ৩৭ লাখ ৮৬ হাজার ৯০০ টাকা।  বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি লিমিটেড এসপিসি পোলগুলো সরবরাহ করবে।

তিনি বলেন, গৃহায়ন গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের আওতায় গণপূর্ত অধিদপ্তর কর্তৃক ‘ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় পুলিশ সদস্যদের জন্য ৯টি আবাসিক টাওয়ার ভবন নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় ডেমরা পুলিশ লাইন্স এলাকায় ২০তলা আবাসিক ভবন নির্মাণের পূর্ত কাজ যৌথভাবে (১) দি ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড এবং (২) দি অরবিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করবে। এজন্য ব্যয় হবে ৮০ কোটি ৩৫ লাখ ৩২ হাজার ২৯৭ টাকায় টাকা।

সভায় গৃহায়ন গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীন জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক শহর এলাকায় ‘স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য উন্নত জীবন ব্যবস্থা (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পের পরামর্শক সেবা যুক্তরাজ্যভিত্তিক আইএমসি এর কাছ থেকে ক্রয়ের ভেরিয়েশন বাবদ অতিরিক্ত ১৩ কোটি ৪ লাখ ৩ হাজার ৭২৯ টাকার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

ড. সালেহ বলেন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘নামগঞ্জ-মদনপুর-দিরাই-শাল্লা-জলসুখা-আজমিরিগঞ্জ-হবিগঞ্জ মহাসড়কের শাল্লা জলসুখা সড়কাংশ নির্মাণ’ প্রকল্পের প্যাকেজ নং-ডব্লিউডি-০২ এর পূর্ত কাজ যৌথভাবে (১) এম, এম বিল্ডার্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড (২) মেসার্স জন্মভূমি নির্মাণ এবং (৩) ওহিদুজ্জামান (এমএনও) এর কাছ থেকে ১৫১ কোটি ২২ লাখ  ৭৮ হাজার ৫৫৬ টাকায় টাকায় ক্রয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘কুড়িগ্রাম (দাসেরহাট)-নাগেশ্বরী-ভুরুঙ্গামারী-সোনাহাট স্থলবন্দর সড়কে জাতীয় মহাসড়কে উন্নীতকরণ’ প্রকল্পের প্যাকেজ নং-ডব্লিউডি-০৪ এর পূর্ত কাজের পুনর্মূল্যায়নের একটি সুপারিশ ছিল। অর্থাৎ প্রকল্পটির জন্য পুনঃদরপত্র আহ্বান করা হবে।  প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছিল ১৪৮ কোটি ৩০ লাখ ৮৬ হাজার ৬২৭ টাকা।

তিনি বলেন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘৪-লেনে উন্নীত ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়ক (এন- ১) (দাউদকান্দি-চট্টগ্রাম অংশ) এর ৪ বছরের জন্য পারফরম্যান্স বেজড অপারেশন ও দৃঢ়করণ’ প্রকল্পের প্যাকেজ নং-ডব্লিউপি-১ এর আওতায় চট্টগ্রাম অংশের পূর্ত কাজের ঠিকাদার হিসেবে তাহের ব্রাদার্স লিমিটেডকে নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে  ২৯০ কোটি ২৬ লাখ ৯৪ হাজার ৭৬৫ টাকা।

সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘৪-লেনে উন্নীত ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়ক (এন- ১) (দাউদকান্দি-চট্টগ্রাম অংশ) এর ৪ বছরের জন্য পারফরম্যান্স বেইজড অপারেশন ও দৃঢ়করণ’ প্রকল্পের প্যাকেজ নং-ডব্লিউপি-২ এর আওতায় কুমিল্লা অংশের পূর্ত কাজের একটি ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। যৌথভাবে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে (১) আব্দুল মোনেম লিমিটেড এবং (২) স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড।  প্রকল্পে ব্যয় হবে ৫৫৬ কোটি ৫৪ লাখ ৪৩ হাজার ৮৮৩ টাকা।

সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘ক্রস-বর্ডার রোড নেটওয়ার্ক ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট (বাংলাদেশ)’ প্রকল্পের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ওরিয়েন্টাল কনসালট্যান্টস গ্লোবাল কোম্পানি লিমিটেড, জাপান এর নেতৃত্বাধীন পরামর্শ সেবা প্রতিষ্ঠান থেকে অতিরিক্ত সেবা বাবদ ক্রয়মূল্যেও অতিরিক্ত ১৮ কোটি ৮৮ লাখ ৩৭ হাজার ৯৬৮ টাকা অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।