২০শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৭ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

করোনা থেকে আমাদের করুণা দাও


| PhotoNewsBD

১৩ মে, ২০২০, ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ

আল্লাহ রহম কর। তোমার রহম ছাড়া বাঁচা সম্ভব নয়। যেভাবে সারাবিশ্বে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে তাতে মৃত্যু কখন জানি এসে দোয়ারে কড়া নাড়ায়। জানিনা কত ভুল করেছি। সেই ভুলের জন্য তোমার কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। আল্লাহ তোমার কাছে খাস রহমত চাই। আমাদেরকে এ মুসিবত থেকে উদ্ধার কর। সারাবিশ্বের মানুষের একটি প্রার্থনা তোমার কাছে, করোনা থেকে আমাদের করুণা দাও।

এই সময়ে আব্দুস সালামের গানটি বার বার মুখে উচ্চারণ হচ্ছে মনের অজান্তে।

“পাপ করেছি মাপ করে দাও
তুমি রহমান,
ভুল করেছি ক্ষমা করে দাও
তুমি মেহেরবান”।

আমাদের পাপগুলো মাপ কর। ভুল-ত্রুটি ক্ষমা কর। আল্লাহ তোমার সাহায্যের প্রত্যাশায় আকাশ পানে তাকিয়ে আছি।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতিদিন দেশে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। এভাবে বাড়তে থাকলে মানুষ চিকিৎসা পাবেনা। ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সাথে সাথে মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়বে মানুষ। এই অবস্থায় আল্লাহ তোমার সাহায্যের আশায় আমরা। তোমার সাহায্য না পেলে বাঁচার কোন সম্ভাবনা নেই আমাদের।

দেশে লকডাউন চলছে। কিন্তু সাধারণ মানুষ লকডাউন মানছেনা। নির্বিগ্নে তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। দেখে মনে হচ্ছে দেশে কিছুই হয়নি। সকল কিছু ঠিক আগের মতোই চলছে। বাজারে লোকজন আছে দরকারি কাজ ছাড়া আড্ডা দিতে। কেউবা আবার দেখতে এসেছে কি অবস্থা বাজারে চলছে, লোকজন কেমন আসছে বাজারে। পুলিশ, সেনাবাহিনী কি করে। এভাবে চলতে থাকলে দেশের অবস্থা কি হবে আল্লাহই জানেন।

আবার গ্রামাঞ্চলে এই করোনার কোন প্রকোপ পড়েনি। সবই ঠিক আছে। হাট-বাজারে মানুষ যাচ্ছে নিয়মিত।
আইনশূংখলা বাহিনী বাজারগুলোতে গেলে সেখান থেকে লোকজন সটকে যায়। যখন প্রশাসন চলে যায় লোকজন হাটে-বাজারে আসে । হাট-বাজারগুলোতে চলে চুর-পুলিশ খেলা। দেখে মনে হয় করোনা ভাইরাস পরাস্ত হবে তাদের কাছে।

গত মাসের ১৭ এপ্রিল মারা যান প্রখ্যাত ইসলামী বক্তা মাওলানা জুবায়ের আহমদ আনসারী। শনিবার তার জানাযা অনুষ্ঠিত হয় নিজ জেলা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। সেখানে তার জানাযার নামাজ পড়তে লাখো মানুষের সমাগম ঘটে। জানাযায় এতো মানুষের সমাগম নিয়ে জলঘোলা কম হয়নি।

লকডাউনের মধ্যে সরকার গার্মেন্টস খুলে দিয়ে দেশকে আরও ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে। এবার মার্কেটিংয়ের জন্য সীমিত পরিসরে খুলে দেয়া হচ্ছে শপিংমল ও দোকান-পাট। একটু অপেক্ষা করুন করোনা সবার বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাবে বিনা দাওয়াতে।

লকডাউনের মধ্যে সকল কিছু আস্তে আস্তে সীমিত পরিসরে খুলে দেয়া হচ্ছে। ইদানীং দেখা যাচ্ছে সীমিত পরিসরে একটি বহুল ব্যবহৃত শব্দ। সরকার বাহাদুর সীমিত পরিসর শব্দটির সঠিক অর্থ আমাদের জানাবেন? যাতে আমরা এই সঠিক অর্থটি জেনে উপকৃত হই।

লেখক: সাংবাদিক ও কলামিস্ট।