৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

কিভাবে ভালো বল করতে হয় শিখছি: তাসকিন


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

২৪ এপ্রিল, ২০২১, ৯:৩৪ অপরাহ্ণ

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের চতুর্থ দিন কোনো উইকেটের দেখা পায়নি বাংলাদেশ। ৭৬ ওভার বোলিং করে উইকেটশূন্য ছিলেন তাসকিন-তাইজুলরা। শুক্রবার তৃতীয় দিন তিনটি উইকেট নিতে পেরেছিলেন বোলাররা। আজ শনিবার চতুর্থ দিন আলোক স্বল্পতার কারণে সম্পূর্ণ খেলা হয়নি।

ক্যান্ডির পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চতুর্থ দিন শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ৫১২ রান তোলে শ্রীলঙ্কা। এখনো তারা পিছিয়ে আছেন ২৯ রানে। বাংলাদেশি বোলার তাসকিন আহমেদ জানালেন এই উইকেট থেকে তারা শিখছেন কিভাবে ভালো করতে হয়।

দিনের খেলা শেষে গণমাধ্যমের ম্যখোমুখি হয়ে এমন মন্তব্য করেন এই ডানহাতি পেসার। পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো।

চতুর্থ দিনে বোলিংয়ে কোনো সাফল্যা মেলেনি। উইকেট নিয়ে কী মন্তব্য…

তাসকিন আহমেদ: আসলে সত্যি কথা বলতে টেস্ট ক্রিকেটে এরকম উইকেটে অনেক কঠিন বোলারদের জন্য। ওদের বোলাররা লাকমলও কিন্তু ৩৫ ওভার বল করেছে, বাকি যারা করেছে ভাল করেছে। এই উইকেটে এমন চান্স তৈরি হওয়ার অপশনটাই কম। ভালো বলেও একটু উনিশ-বিশ হলে সেটা বাউন্ডারি হয়ে যাচ্ছে। আমরাও তো ৫৪১ করে ইনিংস ঘোষণা করেছি। আরেকটু ভালো উইকেট যদি হতো, তাহলে ভালো হতো। কঠিন ছিল অবশ্যই বোলারদের জন্য।

কাল টেস্ট ম্যাচের শেষ দিন। এ দিন নিয়ে কি ভাবনা?

তাসকিন আহমেদ: টেস্ট ক্রিকেটে বেসিক জিনিসটাই ধারাবাহিকভাবে করাটা হলো বিষয়। ফিল্ডিং অনুযায়ী ভাল লেন্থে বল করা মাঝে মাঝে সারপ্রাইজ বাউন্সার করা। সেগুলো আমরা করছি, কিছু সুযোগও তৈরি হয়েছে, দুর্ভাগ্য যে তা বড় গ্যাপে পড়েছে, ক্যাচের মতো হয়ে চার হয়েছে। তবুও আমি মনে করি এটা খুব ভাল ব্যাটিং উইকেট, তো এখানে আসলে আমাদের ধৈর্য নিয়ে ভাল বল করা ছাড়া উপায় নেই।

ড্র হওয়ার সম্ভাবনয়া দেখছেন কী না?

তাসকিন আহমেদ: এই টেস্টে ড্র হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কিন্তু এটা যেহেতু ক্রিকেট, যেকোন সময় যেকোনো কিছু হতে পারে। দ্বিতীয় টেস্টে এমন উইকেটে খেলা হলে আরও আঁটসাঁট হতে হবে, আরও রান আটকে দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে। ব্যাটসম্যানদের দুর্বল জায়গায় বল ফেলতে হবে। এছাড়া তেমন কিছু করার নেই আসলে।

এই পেস কম্বিনেশন আরো ভালো কন্ডিশনে ভাল করতে পারতো কিনা?

তাসকিন আহমেদ: এটা আসলে কম্বিনেশনের চেয়ে বড় ব্যাপার হল ভাল বল করা। হয়ত এই কন্ডিশন বোলারদের জন্য কঠিন, টেস্ট ক্রিকেটে বোলাররা উইকেট থেকে টার্ন বা সিম পেলে আরেকটু ভাল করতে পারে। এখন এরকম উইকেটে কিছু করার নেই। আমরা সেরাটা দিয়েছি, বলতে পারেন ভিন্ন অভিজ্ঞতা হচ্ছে, শেখার চেষ্টা করছি যে এরকম উইকেটে কিভাবে ভাল বল করা যায়।

অনেক দিন পর টেস্টে ফিরতে পেরে কেমন লাগছে?

তাসকিন আহমেদ: আর কামব্যাক করার বিষয়টা আলহামদুলিল্লাহ অনেক ভাল লাগছে। কারণ টেস্ট ক্রিকেটটাই আসল ক্রিকেট। এখানে মানসিক, শারিরিক, স্কিল সব কিছুই বেশি লাগে। তো এখানে ভাল করলে ভবিষ্যতে ছোট ফরম্যাট সহজ হবে। এটা অনেক চ্যালেঞ্জের জায়গা। আমি খুবই ভাগ্যবান যে আবার টেস্ট দলে সুযোগ পেয়েছি।