২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

খোশ আমদেদ মাহে রমজান


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

২৫ এপ্রিল, ২০২০, ১১:৫২ পূর্বাহ্ণ

শুরু হলো পবিত্র রমজান। আজ রহমতের দশকেরও প্রথম দিন। ‘আহলান ওয়া সাহলান শাহরু রমাদান’ -সু স্বাগতম রহমত মাগফিরাত ও নাজাতের মাস।

আল কুরআন নাজিলের মহিমান্বিত ও বরকতপূর্ণ মাস রমজান। এ মাসে মুসলমানরা সারাদিন রোজা রাখেন। মন্দ কাজ এড়িয়ে আল্লাহর সন্তুষ্টি ও রহমত লাভের জন্য নামাজ-বন্দেগিতে সচেষ্ট থাকেন। বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরাও এর ব্যতিক্রম নন।

শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক শেষে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নুরুল ইসলাম আজ শনিবার থেকে রোজা শুরুর ঘোষণা দেন।

সভায় সচিব জানান, সব জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, আবহাওয়া অধিদপ্তর, মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের আকাশে হিজরি ১৪৪১ সনের রমজান মাসের চাঁদ দেখা গেছে।

এ বছর এমন একটি মুহূর্তে রমজান আমাদের কাছে এলো, যখন মানুষ ঘর বা নিজ বাসা থেকে বের হয়ে স্বাভাবিক চলাফেরা করতে পারছেনা। মানুষ আজ করোনাভাইরাস নামক এক মহামারিতে আতঙ্কিত হয়ে নিজ নিজ বাসায় কোয়ারান্টাইনে বন্দি জীবন-যাপন করছে। বিশ্বজুড়ে চলছে মৃত্যুর মিছিল। সবাই বাঁচার জন্য তীব্রভাবে সচেতন হয়ে সাবধানতার সাথে দিনাতিপাত করছে। আর এ অবস্থায় সিয়াম পালন করতে হবে সকলকে। সিয়ামেও রয়েছে কিছু বিধি নিষেধ, করোনা ভাইরাসের আক্রমণ থেকে বাঁচার জন্যও রয়েছে কিছু বিধি-নিষেধ। করোনা মহামারিতে মানুষের মহান স্রষ্টার কাছে নিজেকে সপে দেওয়ার যে অনুভূতি সৃষ্টি হয়েছে ঠিক সিয়াম এসে তা আরো কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে।

রমজান উপলক্ষে সকল মুসলমান পাপ হতে ফিরে আসে পুণ্যময় জীবনের পথে। সকলে সিয়াম পালনের মাধ্যমে জীবনের সকল গুনাহ হতে মুক্ত হয়ে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করার চেষ্টা করে। পক্ষান্তরে আল্লাহও এ মাসটিকে করেছেন পবিত্র ও মহিমান্বিত। এ মাসে ইবাদত-বন্দেগীর ফযীলত অনেক।

রমজানের সিয়াম সকল মুসলমানের উপর ফরজ। আল্লাহ বলেন,‘হে ঈমানদারগণ! তোমাদের উপর সিয়াম ফরজ করা হয়েছে, যেরূপ ফরজ করা হয়েছিলো তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের উপর। যাতে তোমরা আল্লাহভীতি অর্জন করতে পারো।’ (বাকারাহ ১৮৩)।

অন্যত্র তিনি আরো বলেন, ‘রমজান সেই মাস, যাতে কুরআন অবতীর্ণ করা হয়েছে মানুষের হিদায়াত স্বরূপ এবং সুস্পষ্ট পথনির্দেশ ও হক-বাতিলের পার্থক্যকারী হিসাবে। তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি এ মাস পাবে সে যেন সিয়াম পালন করে।’ (বাকারাহ ১৮৫)।

রাসূল (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি ঈমানের সাথে ও সাওয়াবের আশায় রমজানের সিয়াম পালন করে, তার বিগত সকল গুনাহ মাফ করে দেওয়া হয়’। (বুখারী,মুসলিম)

মুসলমানের জন্য রমজান হলো গভীর আত্মশুদ্ধি, সংযম ও  খোদার সান্নিধ্য লাভের মাস। পবিত্র রমজান উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীসহ মুসলিম উম্মাহকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন।

ভোগ-বিলাস ও যথেচ্ছাচার ত্যাগ করে সহজ, সুন্দর ও অনাড়ম্বর জীবনাচারে অভ্যস্ত হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয় পবিত্র রমজানে। এ মাস মুসলমানদের জন্য আত্মিক, আধ্যাত্মিক ও শারীরিক উন্নতির সুযোগ এনে দেয়।

সবাইকে পবিত্র রমজানের শুভেচ্ছা।