২১শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৮ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

চাহিদা কম থাকায় কমেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

১৫ মে, ২০২০, ৫:০৮ অপরাহ্ণ

চলতি বোরো মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে।  এরইমধ‌্যে ঢাকার বাজারগুলোতে আসতে শুরু করেছে বোরো চাল।  যার প্রভাবে রাজধানীর বাজারগুলোতে কমতে শুরু করেছে চালের দাম।  পাশাপাশি চাহিদা কম থাকায় কমেছে অন‌্য আরও নিত‌্যপ্রয়োজনীয় পণ‌্যের দাম।  তবে বেড়েছে মুরগির দাম।

শুক্রবার (১৫ মে) রাজধানীর বাবুবাজার, বাদামতলী, যাত্রাবাড়ী, শান্তিনগর চালের আড়তে গিয়ে দেখা যায়, নতুন মিনিকেট চাল ৪২ টাকা থেকে ৪৯ টাকায় (মানভেদে) বিক্রি হচ্ছে, যা ১০ দিন আগেও ছিল ৫৪ থেকে ৫৮ টাকা; আর পুরনো মিনিকেট বিক্রি হচ্ছে ৪৯-৫২ টাকা কেজি দরে।  নাজিরশাইল প্রতিকেজি ৪৫-৫০ টাকায় (মানভেদে), যা গত ১০ দিন আগেও ৫২ থেকে থেকে ৫৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে।  বিআর আটাশ ৩৬-৪৩ টাকা (মানভেদে) কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।  কমেছে অন‌্যসব চালের দামও।

এদিকে, বাজারে বেড়েছে মুরগির দাম।  ব্রয়লার কেজিতে ২০ টাকা বেড়ে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা, কক ২২০ থেকে ২৪০ টাকায় সোনালী ২৭০ থেকে ৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  এছাড়া দেশি মুরগির কেজি ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা ও গরুর মাংস ৫৮০-৬০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

অপরদিকে, বাজারে ভোজ্যতেল, ছোলা, চিনি, রসুন ও আদার দাম কমেছে।  প্রতি কেজি চায়না রসুন ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা, চায়না আদা ১৫০ থেকে ১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  দুই সপ্তাহ আগেও আদার দাম ছিল ৩৫০ টাকা কেজি।

এছাড়া প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৪৫ থেকে ৫৫ টাকা, ছোলা ৬৮ থেকে ৭৫ টাকা, চিনি ৬২ থেকে ৭০ টাকা, সয়াবিন তেল (খোলা) ৯২ থেকে ৯৬ টাকা, ডাবলি ৫২ থেকে ৭০ টাকা, অ্যাঙ্কর ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, দেশি মশুর ডাল (চিকন) ১২০ থেকে ১৪০ টাকা, মোটা মশুর ডাল ৭৬ থেকে ৯০ টাকা,  ছোলার ডাল ৭৫  থেকে ১০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

বাজারগুলোতে প্রতি কেজি বেগুন (প্রকারভেদে) ৬০ থেকে ৮০ টাকা, শসা ৩০ থেকে ৫০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রতি কেজি টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৫০ টাকা, করলা ৩০ থেকে ৪০ টাকা, উস্তে ৪০ থেকে ৬০ টাকা, গাজর ৩৫ থেকে ৫০ টাকা, পেঁপে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, কচুরলতি ৫০ থেকে ৬০ টাকা, চিচিঙ্গা-ধুন্দুল ৪০ থেকে ৫৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।  আলু ২৫ থেকে ৩৫ টাকা, শাক প্রতি আঁটি ২০ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

লাউ প্রতি পিস ৪০ থেকে ৬০ টাকা, বাঁধাকপি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, ব্রকলি ৫০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  ধনিয়াপাতা বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা কেজি, পুদিনা পাতা ১১০ থেকে ১৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।  প্রতি হালি লেবু ২০ থেকে  ৪০ টাকা হালি (আকারভেদে) বিক্রি হচ্ছে।

বাবলু নামে রায়েরবাগ বাজারের একজন ক্রেতা বলেন, বাজারে চালের দাম কমেছে।  তবে মুরগির দাম বেড়েছে।  সরকারের উচিত অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া।

যাত্রাবাড়ীর সাঈদ রাইস এজেন্সির প্রোপাইটার রায়হান হোসেন বলেন, নতুন চাল বাজারে ছাড়া হচ্ছে।  পাশাপাশি চাহিদা কম থাকায় দাম কমতে শুরু করেছে।

বাদামতলী রাইস এজেন্সির বিক্রেতা আরিফ মিয়া বলেন, কয়েকদিন পর চালের দাম আরও কমবে।  বাজারে এখন চালের কোনো সংকট নেই।