২৪শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২১শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

তেল পড়া দিয়ে করোনা চিকিৎসা


স্টাফ রিপোর্টার: | PhotoNewsBD

৭ জুন, ২০২০, ৪:৩৭ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় দুই হাজার টাকায় করোনা মুক্তির তাবিজ বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গ্রামাঞ্চলের শত শত মানুষকে ধোঁকা দিয়ে উপজেলার চন্দ্রঘোনা কদমতলী ইউনিয়নে ১০ থেকে ১৫ জন বৈদ্য, কবিরাজ ও হুজুর অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

এলাকাবাসী জানান, রাঙ্গুনিয়ার চন্দ্রঘোনা কদমতলী ইউনিয়নের জিয়া মার্কেট, খন্ডল পাড়া, ফকির পাড়া, নাথপাড়াসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় করোনা পরিস্থিতিকে পুঁজি করে কতিপয় বৈদ্য ও হুজুর সক্রিয় হয়ে উঠেছে। করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে কিংবা করোনা সংক্রমিত হবে না এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে সাধারণ মানুষকে তাবিজ-কবজ দিচ্ছে। গ্রামের সহজ সরল মানুষ ও প্রবাসীর স্ত্রীদেরকে ফাঁদে ফেলে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

ভুক্তভোগীরা বলেন, এসব কবিরাজের কাছে গেলে প্রথমেই জ্বীন হাজিরের কথা বলে ১০০ টাকা নেওয়া হয়। এরপর করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি কিংবা ভবিষ্যতে করোনাভাইরাস না হওয়ার জন্য তাবিজের বদলে এক হাজার টাকা থেকে দুই হাজার টাকা আদায় করা হয়। কয়েকজন প্রবাসীর স্ত্রীদের কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা করে আদায় করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। চাল পড়া, পানি পড়া, তেল পড়া দিয়েও তারা করোনার চিকিৎসা করাচ্ছেন। কদমতলী ইউনিয়নের মান্নান বৈদ্য, ওয়াজু বৈদ্য, তপন বৈদ্য, পরিমল বৈদ্যসহ আরও অনেকে করোনার চিকিৎসার নামে মানুষ ঠকানোর কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন।

এই প্রসঙ্গে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার আবুল কালাম বলেন, এ ধরনের কিছু অভিযোগ আমরা শুনেছি। এ ব্যাপারে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। কেউ যদি করোনার চিকিৎসার নামে প্রতারণামূলক চিকিৎসা দিয়ে থাকে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ প্রসঙ্গে চন্দ্রঘোনা কদমতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইদ্রিচ আজগর বলেন, ‘করোনা চিকিৎসার নামে কেউ প্রতারণমূলক কার্যক্রম চালাচ্ছে কি না জানা নেই। তবে কয়েকজন হুজুর সুস্থ থাকার জন্য তাবিজ দিচ্ছে বলে শুনেছি।’