১৬ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

বিক্রি হচ্ছে দূরপাল্লার বাসের অগ্রিম টিকিট


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

১৬ জুলাই, ২০২১, ৬:২১ অপরাহ্ণ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে দীর্ঘদিন পরে গতকাল থেকে দেশের দূরপাল্লার বাসসহ সব ধরনের গণপরিবহন চলাচল শুরু করেছে। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে বিক্রি হচ্ছে দূরপাল্লার বাসের অগ্রিম টিকিট। কিন্তু সেই ঈদের অগ্রিম টিকিট নিয়ে নয় ছয় শুরু করেছে গোল্ডেন লাইন পরিবহন।

অগ্রিম টিকিট কাটার দুইদিন পরে কাউন্টার থেকে ফোন দিয়ে বলা হচ্ছে বাস ছাড়বে না, তাই টিকিটের টাকা ফেরত নিতে ফোন করা হচ্ছে যাত্রীদের।

শুক্রবার (১৬ জুলাই) রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালে গোল্ডেন লাইন পরিবহনের কাউন্টারের সামনে গিয়ে যাত্রীদের এবং কাউন্টার মাস্টারের সঙ্গে কথা কাটাকাটি করতে দেখা গেছে।

ঢাকা থেকে পিরোজপুর যাবেন মো. মাসুদ সিকদার। তিনি শুক্রবার রাত ৯টার বাসের টিকিট গত দুইদিন আগে থেকে নিয়েছেন। কিন্তু আজ সকালে হঠাৎ করে তাকে ফোন দিয়ে বলে বাস ছাড়বে না টিকিটের টাকা ফেরত নিতে।

মাসুদ সিকদার বলেন, ঈদের সময় টিকিট পাওয়া এক কথায় সোনার হরিণ। অনেক কষ্ট করে সে ধানমন্ডি থেকে এসে টিকিট কেটে নিয়ে গিয়েছিলাম। সবকিছু ঠিকঠাক করে রেখেছিলাম রাতে রওনা দেওয়ার জন্য। কিন্তু সকালে ফোন দিয়ে বলে আজ রাতে নাকি গোন্ডেন লাইনের এই বাস ছাড়বে না। কেন ছাড়বে না কি কারণে ছাড়বে না কোনকিছুই তারা ক্লিয়ার করে বলে না। শুধু বলছে মালিক নাকি বলেছে বাস না ছাড়তে। এখন এই অবস্থায় কিভাবে বাড়িতে যাব। কিভাবে অন্য বাসের টিকিট পাব। তাই সকাল সকাল গাবতলী চলে এসেছি কেন বাস ছাড়বে না সেটা জানার জন্য।

তিনি বলেন, এই পরিবহনগুলো প্রায়ই এরকম হয়রানি করে যাত্রীদের। তাই এ ধরনের পরিবহন রাস্তায় বাস যেনো চলতে পারে সেজন্য দাবি জানাচ্ছি। ঈদের সময় হয়রানি করার কোনো মানেই হয় না।

এ বিষয়ে গোল্ডেন লাইন পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার মোহাম্মদ হানিফ হোসেন বলেন, আমাদের কী করার আছে? মালিকপক্ষ থেকে বলা হয়েছে বাস না ছাড়তে। তাই আমরা যাত্রীদের টাকা ফেরত দিয়ে দিচ্ছি। তবে আগামীকাল সকালে যদি যেতে চান মাসুদ সাহেব তাহলে হয়তো কোনো ব্যবস্থা করে দেওয়া যেতে পারে।

এদিকে, গাবতলী কাউন্টারগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আগামী ২৮ তারিখ পর্যন্ত সব বাসের টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। যে কারণে যাত্রীরা টিকিট না পেয়ে ফেরত যাচ্ছেন।