২৮শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

মুরাদকে নিয়ে বক্তব্য, লজ্জিত ইশরাক


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

১৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৫১ অপরাহ্ণ

সদ্য সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে নিয়ে বক্তব্য দিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ইশরাক হোসেন। রোববার (১২ ডিসেম্বর) রাতে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে এক ভিডিও বার্তায় তিনি এ কথা জানান।

ইশরাক বলেন, কয়েকদিন আগে আমাদের দলীয় একটি সভা হচ্ছিল ঢাকার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে। সেখানে বক্তব্য দিতে গিয়ে আমি এক পর্যায়ে আমার আবেগকে ধরে রাখতে পারিনি। সেখানে আমি রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত অশালীন কিছু শব্দ ব্যবহার করেছি, সদ্য বহিষ্কৃত একজন প্রতিমন্ত্রীর বিরুদ্ধে। এ জন্য আমি সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থী। আমার ভুল হয়ে গেছে। আমি আগামীতে চেষ্টা করব এ ধরনের ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে।

তিনি বলেন, আমি নিজেও খুব লজ্জিত ছিলাম, মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন আমার পিতৃতুল্য ও অভিভাবক বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং আরও সিনিয়র নেতারা।

বিএনপির নির্বাহী কমিটির এ সদস্য বলেন, আমি এটা কোনো অজুহাত হিসেবে বলতে চাচ্ছি না। জাস্ট প্রেক্ষাপটটা বলতে চাচ্ছি। আমি ওই অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে সেই ব্যক্তির (ডা. মুরাদ হাসান) একটা ভিডিও আমি শুনছিলাম। সেই মুহূর্তে এ কথাগুলো আমাদেরকে খুবই আঘাত হানে এবং আমি ব্যক্তিগতভাবে আমার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলি। এটি কোনোভাবে কাম্য নয়। আমরা নতুন প্রজন্ম যারা রাজনীতিতে আসছি, আমরা এটি বারবার বলে আসছি যে রাজনৈতিক শিষ্টাচার পুনঃপ্রতিষ্ঠা হওয়া উচিত। একে অপরের প্রতি সহনশীল এবং শ্রদ্ধা নিয়ে কথা বলা উচিত।

তিনি বলেন, আমার বক্তব্য শেষ করার পর আমি নিজেই বিব্রতবোধ করছিলাম, যে এতগুলো মুরব্বি এবং টিভি ক্যামেরার সামনে আমি এই শব্দ ব্যবহার করেছি। তখন আমি অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করি। আমি বাসায় ফেরার পরে আমার মা আমাকে বলেন, এটি একটি অত্যন্ত গুরুতর ভুল হয়েছে। আমরা ভাই বোনরা যখন বড় হয়েছি, তখন আমার মা আমাদের সেই শিক্ষাই দিয়েছেন কখনও অশালীন শব্দ না ব্যবহার করার জন্য পরিস্থিতি যাই হোক।
তিনি আরও বলেন, পরবর্তীতে আমি আমাদের দলীয় মহাসচিবসহ অন্য নেতাদের সঙ্গে সরাসরি দেখা করে তাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছি। আজকে এই ভিডিওর মাধ্যমে দর্শক-শ্রোতা যারা রয়েছেন, বিশেষ করে যাদের আমার প্রতি একটা প্রত্যাশা রয়েছে যে একটি সুস্থ ধারার রাজনীতি হয়তোবা আমরা সূচনা করতে পারি। তাদের কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। এ ভুলের জন্য আমাকে ক্ষমা করে দেবেন।