২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

রাজশাহী-ঢাকা বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা’ এক্সপ্রেস


এমদাদুল হক, সম্পাদক | PhotoNewsBD

২৫ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

রাজশাহী-ঢাকা রুটে চালু হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা’ এক্সপ্রেস। আজ বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল ২০১৯) সকাল ১০টায় যাত্রা শুরু করবে ‘বনলতা’ এক্সপ্রেস। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনটির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উদ্বোধন উপলক্ষে গতকাল ফুল ও বিভিন্ন রংয়ের সিল্কি কাপড় দিয়ে সাজানো হয়েছে ট্রেনটি। দেখে মনে হয় যেন নববধূ সাজে সেজেছে ‘বনলতা’। প্রথম দিন ট্রেনটিতে ভ্রমণে কোন টিকেট লাগবে না বলে জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার রাতে বহুল প্রত্যাশিত বনলতা এক্সপ্রেস ঈশ্বরদী থেকে রাজশাহীতে আনা হয়।

ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা ১২টি বগি নিয়ে চলবে ‘বনলতা’। বগির সমস্ত কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে ঈশ্বরদী ক্যারেজ এন্ড ওয়াগন বিভাগে। বগিগুলোর পরীক্ষামূলক চলাচল, জ্বালানী, বিদ্যুৎসংযোগ পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ শেষ করেন তারা। এরপর মঙ্গলবার রাতে রাজশাহীতে পৌঁছায় ট্রেনটি।

বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) খোন্দকার শহিদুল ইসলাম জানান, উদ্বোধনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে ট্রেনটি উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাজশাহীতে থাকবেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

‘বনলতা’ এক্সপ্রেসে ভ্রমণ করলেই যাত্রীদের দেয়া হবে খাবার। এই খাবারের দাম ধরা হবে ১৮০ টাকা। আপাতদৃষ্টিতে এই খাবার সৌজন্যমূলক বলা হলেও ট্রেনের ভাড়ার সঙ্গে সমপরিমাণ অর্থ যোগ করে টিকিটের মূল্য নির্ধারিত হবে। আর এতে শোভন ৫৫৫ টাকা ও এসি চেয়ারের ভাড়া ৯০০ টাকা নির্ধারণ করা হতে পারে বলে জানা গেছে।

বনলতায় থাকছে ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা ১২টি নতুন বগি। এর মধ্যে শোভন চেয়ারের বগি ৭টি। যার আসন সংখ্যা ৬৬৪টি। ২টি এসি বগির আসন সংখ্যা ১৬০টি। ১৬ আসন নিয়ে একটি পাওয়ার কার ও ১০৮টি আসন নিয়ে দু’টি গার্ডব্রেক। সবমিলিয়ে ‘বনলতা’র আসন সংখ্যা ৯৪৮। এছাড়াও খাবারের জন্য থাকবে একটি খাওয়ার বগি।

ওয়াগন বিভাগ সূত্র জানায়, ট্রেনটিতে সংযুক্ত রয়েছে উড়োজাহাজের মতো বায়োটয়লেট। এ কারণে মলমূত্র আর রেললাইনের ওপরে পড়বে না। ট্রেনটিতে থাকছে রিক্লেনার চেয়ার। আছে ওয়াইফাই সুবিধা। প্রতিটি বগিতে রয়েছে এলইডি ডিসপ্লে। যার মাধ্যমে স্টেশন ও ভ্রমণের তথ্য প্রদর্শন করা হবে। কিন্তু থাকছে না শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কোনো ধরনের স্লিপিং বার্থ। রেল বিভাগের ভাষ্য, যেহেতু ট্রেনটি দিনের বেলা চলাচল করবে সে কারণে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বার্থের দরকার পড়ছে না আপাতত।

এ বিষয়ে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বৃহস্পতিবার বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন উদ্বোধনের তারিখ নির্ধারণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনটি শুভ উদ্বোধন করবেন। রাজশাহীতে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন উপস্থিত থাকবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য সকাল সাতটার পরিবর্তে সকাল ১০টায় রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে ট্রেনটি। অন্যান্য দিন যথারীতি সময়সূচি অনুযায়ী চলবে।

বনলতা এক্সপ্রেসের বগি নতুন হলেও ইঞ্জিন পুরাতন। ২০১৩ সালে ভারত থেকে আমদানি করা দুটি ইঞ্জিন দিয়ে চলাচল করবে ট্রেনটি। ঘন্টায় ট্রেনটির সর্ব্বোচ্চ গতিবেগ হবে ৯০ থেকে ৯৫ কিলোমিটার। ‘বনলতা’ এক্সপ্রেস রাজশাহী স্টেশন থেকে সকাল ৭ টায় ছেড়ে ঢাকায় পৌঁছাবে ১১ টা ৪০ মিনিটে। আর ঢাকা থেকে দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে ছেড়ে রাজশাহী পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬টায়।