৮ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী

শর্ত ছাড়াই আলোচনার জন্য প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

৯ জানুয়ারি, ২০২০, ৮:২৩ অপরাহ্ণ

ইরাকে জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যার হামলা ও তেহরানের পাল্টাহামলা ঘিরে গত কয়েকদিনের উত্তেজনার পর যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, ইরানের সঙ্গে ‘কোনও পূর্ব শর্ত ছাড়াই তাৎপর্যপূর্ণ আলোচনার জন্য তারা প্রস্তুত’। জাতিসংঘে পাঠানো এক চিঠিতে যুক্তরাষ্ট্র এই অবস্থানের কথা বলেছে। তবে ওই চিঠিতে. আত্মরক্ষার পদক্ষেপ হিসেবে ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার পক্ষে সাফাই গাওয়া হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানা গেছে।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে দেওয়া চিঠিতে মার্কিন দূত কেলি ক্রাফট বলেছেন, ইরানি শাসক দ্বারা আন্তর্জাতিক শান্তি এবং নিরাপত্তা বা উত্তেজনা বৃদ্ধি এড়ানোর লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র আলোচনার জন্য প্রস্তুত।

জাতিসংঘ চার্টারের ৫১ ধারার কথা উল্লেখ করে চিঠিতে সোলাইমানিকে হত্যাকে যৌক্তিক বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, নিজেদের সেনা ও স্বার্থের সুরক্ষার জন্য মধ্যপ্রাচ্যে ‘প্রয়োজন অনুসারে’ আরও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

তবে জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানি দূত মাজিদ তাখত রাভাঞ্চি বলেছেন, ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনার প্রস্তাব বিশ্বাসযোগ্য নয়। তেহরানও মার্কিন ঘাঁটিতে হামলাকে যৌক্তিকতা দিতেও জাতিসংঘ চার্টারের ৫১ ধারার কথা তুলেছে।

ইরানি চিঠিতে বলা হয়েছে, ইরান উত্তেজনা বা যুদ্ধ চায় না। বাগদাদে হামলা ছিল নির্দিষ্ট ও সামরিক উদ্দেশ্যে। ফলে সেখানে কোনও বেসামরিক নাগরিক ও বেসামরিক সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি।

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের রাজধানী বাগদাদে বিমান হামলা চালিয়ে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ডের (আইআরজিসি) কুদস বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়। এই হামলার ‘মারাত্মক প্রতিশোধ’ হিসেবে বুধবার (৮ জানুয়ারি) সকালে ইরাকের মার্কিন বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় তেহরান। দুই দেশের মধ্যেই চরম উত্তেজনা ও পাল্টাপাল্টি হুঁশিয়ারির পর বৃহস্পতিবার উভয় পক্ষের নমনীয় হওয়ার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।