১৮ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৫ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

সোলাইমানিকে হত্যা করা হয় সাড়ে ৬ কোটি ডলারের মার্কিন ড্রোন দিয়ে


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

৭ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:২৯ অপরাহ্ণ

গত সপ্তাহে বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার আগেই ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল সোলাইমানির ভাগ্য নির্ধারিত হয়ে গিয়েছিল। বৃহস্পতিবার লেবাননের রাজধানী বৈরুতে মার্কিন ঘাঁটি প্রথম সোলাইমানির সফর পরিকল্পনা জানতে পারে। এরপরই দ্রুত সোলাইমানিকে হত্যার ছক কষে ফেলে মার্কিন গোয়েন্দারা।

হামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিমান থেকে নামার পর সোলাইমানির মাথার ওপর চক্কর দিয়েছিল লেজার গাইডেড ড্রোন। নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছিল তার প্রতিটি পদক্ষেপ।

মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রাক্তন বিশেষ অভিযান বিশেষজ্ঞ ব্রেট ভেলিচোভিচ জানান,দ্য রিপার নামের এই ড্রোনটির দাম  ছয় কোটি ৪০ লাখ ডলার। জেনারেল অ্যাটোমিকস নির্মিত এই ড্রোনটির দুটি পাখা মাত্র ২০ মিটার চওড়া। হামলার আগে ১০ মিনিট ধরে সোলাইমানি ও তার সঙ্গীদের ওপর নজর রাখছিল শক্তিশালী সেনসর থাকা ড্রোনটি। রিপারের শক্তিশালী ক্যামেরার মাধ্যমে সোলাইমানি বিমান থেকে নামার পর কোন গাড়িতে উঠেছেন, গাড়ির কোন পাশে বসেছেন তাও দেখা গেছে। এমনকি তার গায়ের জামার রঙটি কী ছিল তাও স্পষ্ট বোঝা গেছে।

দুটি গাড়ির বহরের মধ্যে সোলাইমানির গাড়িটি ছিল সামনে। বিমানবন্দর থেকে বের হওয়ার সড়কে ওঠার পর সামনের গাড়িতে দুটি এবং পেছনের গাড়িতে দুটি রকেট হামলা চালানো হয় ড্রোন থেকে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ড্রোন হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয় সোলাইমানিকে। এ ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের ওপর ‘চরম প্রতিশোধ’ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইরান।