৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

৫ লাখ জরিমানা ও ৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ সাকিব


ফটোনিউজবিডি ডেস্ক: | PhotoNewsBD

১২ জুন, ২০২১, ৯:০০ অপরাহ্ণ

স্টাম্পে লাথি ও আছাড় মারার ঘটনায় এবং আম্পায়ারের সঙ্গে অশোভন আচরণের কারণে মোহামেডানের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে ৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সঙ্গে জরিমানা গুণতে হবে ৫ লাখ টাকা। শাস্তির বিষয়ে ঘোষণা দিয়েছেন সিসিডিএম চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ।

সাকিবকে লেভেল থ্রি অফেন্স অনুযায়ী শাস্তি দেওয়া হয়েছে। দুইবার অসাদাচরণের জন্য তাকে ৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ ও ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কাজী ইনাম।

শনিবার (১২ জুন) গুলশানে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে শাস্তির বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে সিসিডিএম চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা ম্যাচ অফিসিয়ালদের রিপোর্টের অপেক্ষায় ছিলাম, সেটা পেয়েছি। দুইটা অভিযোগ ছিল। একটি ৪.৬ ওভারে এলবিডব্লিউর আবেদন, যার প্রতিক্রিয়া সাকিব লাথি মেরে উইকেট ভেঙে দিয়েছেন। আরেকটা ছিল ৫.৫ ওভারের পর, যখন আম্পায়াররা মাঠে কভার ডাকেন এবং সাকিব উইকেট তুলে ছুঁড়ে ফেলে দেন। আমরা যে রিপোর্ট দেখেছি, তাতে দুই অপরাধের জন্য লেভেল-৩ সাকিবের বিরুদ্ধে গিয়েছে। সেক্ষেত্রে তার নিষেধাজ্ঞা ৩ ম্যাচ এবং জরিমানা ৫ লাখ টাকা।’

এর আগে শুক্রবার (১১ জুন) আবাহনীর বিপক্ষে ম্যাচে একবার নয়, দুবার সাকিব বিতর্কে জড়ান। অনফিল্ড এবং অফ দ্য ফিল্ডে তার আচরণ ছিল ঔদ্ধত্যপূর্ণ। মাঠে পারফরম্যান্সে সাকিব খুব ভালো সময় কাটাচ্ছিলেন না। তবে আবাহনীর বিপক্ষে ম্যাচে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসেন। ব্যাটিংয়ে ১ চার ও ২ ছক্কায় ২৭ বলে ৩৭ রান ছিল দলের হয়ে সর্বোচ্চ। বোলিংয়ে মুশফিকের হাতে একমাত্র ওভারের দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে এক চার ও ছক্কা হজম করেন। সাকিবের মেজাজ হারানো শুরু সেখানেই।

ওই ওভারের ষষ্ঠ বল মুশফিকের প্যাডে লাগলে আবেদন করেন সাকিব। আম্পায়ার ইমরান পারভেজ নট আউট জানানোর সেকেন্ড ব্যবধানে স্টাম্পে লাথি দেন। তেড়েফুড়ে যান আম্পায়ারের দিকে। এরপর উত্তেজিত হয়ে কথা বলতেই থাকেন। সতীর্থরা এগিয়ে এসে পরিস্থিতি সামলে নেওয়ার চেষ্টা করেন।

পরের ওভারে মিরপুরে বৃষ্টি ও বাতাসের কারণে আম্পায়াররা যখন কভার আনার ডাক দেন তখন আবার মেজাজ হারান সাকিব। এক্সটা কাভার থেকে দৌঁড়ে এসে দুই হাতে তিন স্টাম্প তুলে আছাড় মারেন। আবার পরিস্থিতি খারাপ হয়ে যায়।

মোহামেডানের দেওয়া ১৪৬ রানের জবাবে তখন ব্যাটিং করছিল আবাহনী। ৫.৫ ওভারে ৩১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে শিরোপা প্রত্যাশিরা। বৃষ্টি আইনে মোহামেডান ১৬ রানে এগিয়ে। ৮৩ মিনিট বন্ধ থাকার পর আবাহনীর নতুন টার্গেট ৯ ওভারে ৭৬। সেই রান তাড়া করতে গিয়ে ৩১ রানের আক্ষেপে পুড়ে আবাহনী। ৫ বছর পর মোহামেডান জিতেছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর বিপক্ষে।